ঢাকা শনিবার
১৩ জুলাই ২০২৪
০৪ জুলাই ২০২৪

চীনে লাগামহীন করোনা, হাসপাতালে বাড়ানো হচ্ছে বেড


ডেস্ক রিপোর্ট
217

প্রকাশিত: ২০ ডিসেম্বর ২০২২ | ১২:১২:৩২ পিএম
চীনে লাগামহীন করোনা, হাসপাতালে বাড়ানো হচ্ছে বেড ফাইল-ফটো



বিক্ষোভের জেরে কঠোর বিধি-নিষেধ তোলার পর লাগামহীনভাবে করোনার আঘাতের কবলে পড়েছে চীন। করোনার এ পরিস্থিতিতে হাসপাতালে বেড বাড়ানো শুরু করেছে দেশটি।

ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, কঠোর বিধি-নিষেধ তুলে করোনাকে মুক্তভাবে বিচরণ করার সুযোগের সিদ্ধান্তকে বিশ্বের জন্য উদ্বেগজনক বলেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। তাই চীন তার শহরগুলোর হাসপাতালে নতুন করে শয্যা বাড়ানোর কাজ শুরু করেছে। একইসঙ্গে জ্বর শনাক্তকরণ সেবা চালু করেছে।

বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ ব্যয় করা সমাজ ও দ্বিতীয় অর্থনীতির দেশ চীন তিন বছর কঠোরভাবে করোনাকে নিয়ন্ত্রণ করতে গণ লকডাউন ও বিধি-নিষেধসহ ‘জিরো কোভিড নীতি’ জারি রেখেছিল। কিন্তু দেশজুড়ে চীনের ‘জিরো কোভিড নীতি’র বিরুদ্ধে বিক্ষোভ হলে বিধি-নিষেধে শিথিলতা আনে বেইজিং।

এখন ১৪০ কোটি মানুষের দেশে লোকদের প্রাকৃতিক রোগী প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকায় করোনাভাইরাস দ্রুত ছড়ানোর আশঙ্কা রয়েছে। এতে অনেক মানুষের মৃত্যু, ভাইরাসের ধরনের পরিবর্তন ও প্রভাব এবং অর্থনীতি ধসের সম্ভাবনা রয়েছে।

সোমবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র নিড প্রাইস বলেন, আমরা জানি ভাইরাসটি যেকোনো সময় ছড়িয়ে পড়তে পারে। এটি বন্যরূপে রয়েছে। ভাইরাসটি নানা রূপে পরিবর্তিত হয়ে যেকোনো স্থানে মানুষের জীবনকে হুমকির মধ্যে ফেলে দেবে। এটি চীনের অর্থনীতির জন্য যেমন উদ্বেগজনক, তেমনি বিশ্বের অর্থনীতির প্রবৃদ্ধির জন্য হুমকি।

মঙ্গলবার করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে পাঁচজনের মৃত্যুর খবর জানিয়েছে চীন। গতকাল সোমবার একজনের মৃত্যুর খবর জানিয়েছিল দেশটি। সোমবারের মৃত্যুটি চলতি সপ্তাহের প্রথম মৃত্যু ছিল।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহান থেকে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে। সেই থেকে দেশটিতে এখন পর্যন্ত পাঁচ হাজার ২৪২ জন করোনায় মারা গেছেন। এ সংখ্যা আন্তর্জাতিক মাপকাঠিতে অনেক কম।


আরও পড়ুন: