ঢাকা মঙ্গলবার
১৬ জুলাই ২০২৪
১৪ জুলাই ২০২৪

লাক্ষাদ্বীপে তৈরি হচ্ছে ভারতের নতুন নৌঘাঁটি


ডেস্ক রিপোর্ট
142

প্রকাশিত: ০৪ মার্চ ২০২৪ | ০৩:০৩:২৯ পিএম
লাক্ষাদ্বীপে তৈরি হচ্ছে ভারতের নতুন নৌঘাঁটি ফাইল-ফটো



মালদ্বীপের সঙ্গে টানাপোড়েনের মধ্যেই নিরাপত্তা বাড়াতে লাক্ষাদ্বীপে নতুন নৌঘাঁটি বানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। শনিবার এক বিবৃতিতে ভারতের নৌবাহিনী জানায়, মালদ্বীপে চীনের ক্রমবর্ধমান উপস্থিতি নিয়ে সন্দেহ দেখা দিয়েছে। নতুন ঘাঁটিটি এই অঞ্চলে দিল্লির নজরদারি বাড়াতে সহায়তা করবে।

গত মাসের শুরুর দিকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর লাক্ষাদ্বীপ সফরের পরই নতুন এই পদক্ষেপ নিচ্ছে দিল্লির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। আগামী ৬ মার্চ দেশটির নৌবাহিনী এ পরিকল্পনা ঘোষণা করবে।

লাক্ষাদ্বীপের মিনিকয় দ্বীপে প্রাথমিকভাবে আইএনএস ‘জটায়ু’ রণতরী মোতায়েন করা হবে। পরে এই তরীকে কেন্দ্র করে গড়ে তোলা হবে ‘আইএনএস জটায়ু’ নৌঘাঁটি। ঘাঁটিটি থেকে মালদ্বীপ সংলগ্ন সাগর এলাকায় নজর রাখা সম্ভব হবে।
 
ঘাঁটিটি থেকে মালদ্বীপ সংলগ্ন সাগরে নজর রাখা সম্ভব হবে। প্রাথমিক ভাবে ‘জটায়ু’তে হাতেগোনা কয়েক জন নৌ কর্মকর্তা ও কর্মীকে পাঠানো হবে। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এর পরিধি বাড়বে।

লাক্ষাদ্বীপের সবচেয়ে দক্ষিণের দ্বীপ মিনিকয়। মালাক্কা প্রণালী এবং এডেন উপসাগর ও হরমুজ প্রণালীর মধ্য দিয়ে চলে যাওয়া বাণিজ্যপথের দুপাশজুড়ে এই দ্বীপের অবস্থান।

মালদ্বীপের উত্তরে প্রায় ১৩০ কিলোমিটার দূরে ভারতের লাক্ষাদ্বীপ দ্বীপপুঞ্জের অবস্থান। সেখানকার মিনিকয় দ্বীপে নতুন নৌ ঘাঁটিটি স্থাপন করা হবে; যা মালদ্বীপের একেবারে নিকটতম পয়েন্টে অবস্থিত।

ভারতের নৌবাহিনী বলেছে, লাক্ষাদ্বীপের সর্বদক্ষিণের দ্বীপ মিনিকয়। এই দ্বীপটি আন্তর্জাতিক যোগাযোগের অত্যাবশ্যক সামুদ্রিক পথের চারপাশজুড়ে বিস্তৃত। ঘাঁটিটি ওই অঞ্চলে জলদস্যুতা ও মাদকবিরোধী অভিযান জোরদার করবে। এই ঘাঁটিটি কৌশলগত গুরুত্বপূর্ণ দ্বীপগুলোতে ক্রমবর্ধমান নিরাপত্তা অবকাঠামো বৃদ্ধির একটি নীতির অংশ হিসেবে স্থাপন করা হচ্ছে।

লাক্ষাদ্বীপের কাভারত্তিতে ভারতের এরই মধ্যে একটি ঘাঁটি রয়েছে।


আরও পড়ুন: