ঢাকা মঙ্গলবার
১৬ জুলাই ২০২৪
১৪ জুলাই ২০২৪

ইন্দোনেশিয়ার ভূমিধস,১৫ প্রানহানি


ডেস্ক রিপোর্ট
148

প্রকাশিত: ১২ মার্চ ২০২৪ | ১০:০৩:০১ এএম
ইন্দোনেশিয়ার ভূমিধস,১৫ প্রানহানি ফাইল-ফটো



ইন্দোনেশিয়ায় প্রবল বর্ষণ ভূমিধসে অন্তত ১৫ জন নিহত এবং বেশ কয়েকজন নিখোঁজ হয়েছেন। দক্ষিণ চীন সাগর সীমান্তবর্তী এলাকায় নাতুনা অঞ্চলে এই ঘটনা ঘটে বলে সোমবার কর্মকর্তাদের বরাতে জানিয়েছে আল জাজিরা।

বার্তাসংস্থাটির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৭ মার্চ বৃহস্পতিবার থেকে প্রবল বর্ষণ শুরু হয়েছে পশ্চিম সুমাত্রার বিভিন্ন অঞ্চলে। বিএনবিপির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, টানা বৃষ্টি ও তার ফলে সৃষ্ট বন্যা-ভূমিধসে প্রদেশের বিভিন্ন এলাকার সেতু, স্কুল ও বিভিন্ন স্থাপনাসহ প্রায় ৭০০ বাড়িঘর ধ্বংস হয়ে গেছে। এ ছাড়া নষ্ট হয়ে গেছে দ্বীপের অন্তত ২৮০ একর জমির ফসল। সেইসঙ্গে ক্ষয়ক্ষতি ও ভোগান্তির মধ্যে পড়েছেন অন্তত ৩৯ হাজার মানুষ।

ন্যাশনাল ডিজাস্টার মিটিগেশন এজেন্সি (বিএনপিবি)-এর ছবি এবং ভিডিওতে দেখা গেছে, বনাঞ্চলের ভেতর ভূমিধস হয়েছে এবং প্রত্যন্ত ‘সেরাসান’ দ্বীপে অবস্থিত বাড়ি-ঘরের ওপর গিয়ে পড়েছে। এতে বাড়ি-ঘর,গাছ-পালা ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে।

নাতুন তল্লাশি উদ্ধারকারী সংস্থার প্রধান আবদুল রহমান বলেছেন, সর্বশেষ ৫০ জনের নিখোঁজের খবর পাওয়া গেছে এবং নিহত হয়েছেন ১৫ জন।

ভূমিধস বৃষ্টির কারণে ঘটনাস্থলে অনুসন্ধান উদ্ধার অভিযান ব্যাহত হচ্ছে বলে বিএনপিবি টুইটারে জানিয়েছে। ছাড়া বোর্নিও দ্বীপ মালয়েশিয়া উপদ্বীপের মধ্যে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

সংস্থার আরেক মুখপাত্র জুনাইনাহ জানিয়েছেন, ‘আবহাওয়া বদলে যাচ্ছে। বাতাস এখনো জোরে জোরে বইছে। জোয়ারের কারণে ঢেউও বেশি হচ্ছে।’
সোমবার বিকেলে ৬০ জনের একটি অনুসন্ধান উদ্ধারকারী দল দ্বীপের উদ্দেশে রওনা হয়। নৌকায় সেখানে পৌঁছাতে সাত থেকে আট ঘন্টা সময় লাগার কথা রয়েছে।

জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থার মুখপাত্র সুতোপো পুরুও নাগরোহো বলেছেন, সুকাবুমি জেলার সিনারেসমি গ্রামে এই প্রাকৃতিক দুর্যোগে তিনজন আহত হয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, ভূমিধসে গ্রামের ৩০টি বাড়ি চাপা পড়েছে। এতে মাটি পাথরের নিচে বেশকিছু লাশ চাপা পড়ে আছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। উদ্ধারকর্মীরা লাশগুলো উদ্ধারে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।


আরও পড়ুন: