ঢাকা মঙ্গলবার
১৬ জুলাই ২০২৪
১৪ জুলাই ২০২৪

যে দুটি দেশের ২৭ নদী ৫০ দিনে অতিক্রম করবে গঙ্গা বিলাস


ডেস্ক রিপোর্ট
223

প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০২২ | ০১:১১:৩৫ পিএম
যে দুটি দেশের ২৭ নদী ৫০ দিনে অতিক্রম করবে গঙ্গা বিলাস ফাইল-ফটো



আগামী ১০ জানুয়ারি থেকে ভারতের উত্তর প্রদেশের বারাণসী থেকে গঙ্গা বিলাস নামে একটি রিভার ক্রুজ (বিলাসবহুল প্রমোদতরী) যাত্রা শুরু করবে। ৫০ দিনের দীর্ঘ এই ভ্রমণে রিভার ক্রুজটি বারাণসী থেকে বাংলাদেশ হয়ে আসামের ডিব্রুগড় পর্যন্ত পাড়ি দেবে।

সবকিছু ঠিকঠাকভাবে হলে এটিই হবে বিশ্বের দীর্ঘতম ভ্রমণের বিলাসবহুল ক্রুজ। সেক্ষেত্রে ভারতের অভ্যন্তরীণ জলপথ উন্নয়নে ও পর্যটনের মানচিত্রে নতুন দিগন্ত উম্মোচিত হবে বলে মনে করছে ভারত সরকার।

জানা গেছে, বারাণসী থেকে ১০ জানুয়ারি এই রিভার ক্রুজ যাত্রা শুরু করবে। দীর্ঘ চার হাজার কিলোমিটার পথ অতিক্রম করবে এই ক্রুজ। এই পথ সম্পূর্ণ অতিক্রম করতে সময় লাগবে প্রায় ৫০ দিন। এই সময়ে ভারত ও বাংলাদেশের প্রায় ২৭টি নদী প্রণালির মধ্যে দিয়ে যাবে এবং যাত্রাপথে ৫০টিরও বেশি স্টপেজে দাঁড়াবে এই ক্রুজটি। স্টপেজগুলোর মধ্যে রয়েছে, সুন্দরবন ডেল্টা, গঙ্গা আরতি, আসামের মায়ংয়ের কালো জাদু এবং কাজিরাঙ্গা জাতীয় উদ্যানের মতো পার্ক।সম্প্রতি বারাণসীর রবিদাস ঘাটে এই ভ্রমণের সময়সূচি প্রকাশ করেন ভারতের কেন্দ্রীয় জাহাজ ও নৌপরিবহন মন্ত্রী সর্বানন্দ সানোয়াল এবং উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ।

সূচি অনুযায়ী, ১০ জানুয়ারি থেকে এই ক্রুজটি যাত্রা শুরু করে গাজীপুর-বক্সার হয়ে ১৭ জানুয়ারি বিহারের পাটনায় পৌঁছাবে। এরপর বৌদ্ধগয়া-নালন্দা-ফারাক্কা-মুর্শিদাবাদ হয়ে ২৯ জুন কলকাতায় পৌঁছানোর কথা রয়েছে। একদিন বিরতি নিয়ে পরদিনই পশ্চিমবঙ্গের সুন্দরবন অংশের নামখানা-সজনেখালি হয়ে তা সুন্দরবনের বাংলাদেশ অংশে প্রবেশ করবে। পরে সেটি মোংলা বন্দর-বাগেরহাট-মোড়েলগঞ্জ-বরিশাল-সোনারগাঁও হয়ে ৯ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় পৌঁছাবে। এরপর আরিচা-টাঙ্গাইল-সিরাজগঞ্জ-চিলমারী-আসামের ধুবরি-গোয়ালপাড়া হয়ে ২০ ফেব্রুয়ারি গোয়াহাটিতে পৌঁছানোর কথা রয়েছে। পরে তা ২৬ ফেব্রুয়ারি মাজুলী আইল্যান্ড পৌঁছাবে এবং ১ মার্চ আসামের ডিগ্ৰুগড়ে গিয়ে রিভার ক্রুজটি তার যাত্রা শেষ করবে। বিলাসবহুল এই ক্রুজটি বাংলাদেশে ১৫ দিন অবস্থান করবে এবং এইসময় বাংলাদেশে ১,১০০ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করবে।

প্রায় অর্ধশতাধিক দিনের দীর্ঘ এই ভ্রমণে ক্রুজে বিনোদনের জন্য থাকবে সংগীত এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। ফিটনেসের জন্য জিমের সুযোগ সুবিধাও থাকবে।

সরকারি ও বেসরকারি যৌথ ব্যবস্থাপনা মডেলের (পিপি মডেল) ওপর ভিত্তি করি চালানো হবে বারাণসী-বাংলাদেশ-ডিব্রুগড় ভ্রমণের এই রিভারক্রুজ। এই ভ্রমণের জন্য ভারত সরকারের উদ্যোগে ‘ইনল্যান্ড ওয়াটারওয়েজ অথরিটি অব ইন্ডিয়া’ (আইডব্লিউএআই)-এর দুই জনপ্রিয় ক্রুজ সংস্থা অন্তরা লাক্সারি রিভার এবং জেএমবক্সী রিভার ক্রুজের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। যদিও এই যাত্রার জন্য টিকিটের দাম কত হবে তা এখনও নির্ধারণ হয়নি।

গঙ্গা বিলাস নামের এই ক্রুজের দৈর্ঘ্য ৬২.৫ মিটার, প্রস্থ ১২.৮ মিটার। এতে ১৮টি স্যুট থাকবে। থাকবে এলইডি টিভি, স্মোক ডিটেক্টর লাইফ জ্যাকেট, ফ্রেঞ্চ ব্যালকনি, ৪০ আসনবিশিষ্ট রেস্তোরাঁ, স্পা, সানডেক ইত্যাদি। এটি সম্পূর্ণ নিরাপদ হবে।

এই রোমাঞ্চকর রিভারক্রুজ যাত্রার সময়সূচি প্রকাশ অনুষ্ঠানে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ জানান, এতে আশ্চর্যজনক অ্যাডভেঞ্চার থাকবে।

এ ব্যাপারে ভারতের কেন্দ্রীয় জাহাজ ও নৌপরিবহন মন্ত্রী সর্বানন্দ সানোয়াল জানিয়েছেন, নামক এই ক্রুজ বারাণসী থেকে ডিব্রুগড় পর্যন্ত ৫০ দিনের দীর্ঘতম নদী যাত্রায় ২৭টি নদী প্রণালীর ভিতর দিয়ে যাবে এবং ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ স্থানসহ ৫০টিরও বেশি পর্যটন স্থান পরিদর্শন করবে। এটি হবে পুরো বিশ্বে একটি জাহাজেই বৃহত্তম একক নদী যাত্রা এবং এটি ভারত ও বাংলাদেশ উভয়কেই বিশ্বের রিভারক্রুজ মানচিত্রে অন্তর্ভুক্ত করবে।

তিনি আরও বলেন, ক্রুজ পরিষেবাসহ উপকূলীয় এবং নৌপরিবহনের উন্নয়ন সরকারের অন্যতম অগ্রাধিকার এবং দেশের বিপুল সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে এই অঞ্চলে এ জাতীয় আরও পরিষেবা চালু করা হবে। নদীতে যাত্রী পরিবহনের পাশাপাশি, অভ্যন্তরীণ নৌপথ ব্যবস্থার উন্নয়ন, বাণিজ্য ও পণ্যবাহী পরিষেবাকে সহজতর করবে এবং এর রুটের আশপাশের এলাকার পর্যটনকে উৎসাহিত করবে।

সনোয়াল আরও জানান, ক্রুজগুলো বিভিন্ন ধরনের হয়। আবার পর্যটকরাও বিভিন্ন মানসিকতা নিয়ে আসেন। কেউ কেউ সম্পূর্ণ ভ্রমণের জন্য থাকতে চান, আবার কেউ কেউ এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যেতে পারেন। এই পরিষেবাটি সব ধরনের পর্যটকদের সুবিধা দেবে।


আরও পড়ুন: