ঢাকা সোমবার
২২ এপ্রিল ২০২৪
২১ এপ্রিল ২০২৪

বাংলাদেশ হল আইএমওর কাউন্সিল সদস্য


ডেস্ক রিপোর্ট
95

প্রকাশিত: ০২ ডিসেম্বর ২০২৩ | ০৪:১২:১১ পিএম
বাংলাদেশ হল আইএমওর কাউন্সিল সদস্য ফাইল-ফটো



আন্তর্জাতিক সমুদ্র-বিষয়ক সংস্থার (আইএমও) সি ক্যাটাগরিতে আগামী দুই বছরের (২০২৪-২০২৫) জন্য কাউন্সিল সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে বাংলাদেশ।
লন্ডনের বাংলাদেশ হাই-কমিশন জানায়, আইএমওর ১৬৬ সদস্যের মধ্যে ১২৮ ভোট পেয়ে অত্যন্ত প্রতিযোগিতামূলক ক্যাটাগরিতে বাংলাদেশ জয়লাভ করল।
শনিবার (২ ডিসেম্বর) লন্ডনের বাংলাদেশ হাই-কমিশন এ তথ্য জানায়। 
শুক্রবার লন্ডনে জাতিসংঘের শিপিং সংক্রান্ত বিশেষায়িত এই এজেন্সির ৩৩তম অধিবেশনে আইএমও  কনভেনশনের ১৬ ও ১৭ নম্বর অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, তিনটি ক্যাটাগরিতে কাউন্সিল সদস্য পদে গোপন ব্যালটে ভোটের মাধ্যমে ২০২৪-২০২৫ মেয়াদের জন্য ৪০ সদস্যের নতুন আইএমও কাউন্সিল নির্বাচিত হয়।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, তিন ক্যাটাগরির মধ্যে 'এ' ক্যাটাগরির দেশের সংখ্যা ১০টি; আন্তর্জাতিক শিপিং পরিষেবা দিতে আগ্রহী দেশগুলো এই ক্যাটাগরির সদস্য দেশ।
'বি' ক্যাটাগরিতেও দেশের সংখ্যা ১০টি; এই দেশগুলো আন্তর্জাতিক সমুদ্র বাণিজ্যে আগ্রহী।
'এ' ও 'বি' ক্যাটাগরিতে নির্বাচিত নয়, কিন্তু সামুদ্রিক পরিবহনে বিশেষ আগ্রহী এমন ২০টি দেশ 'সি' ক্যাটাগরিতে নির্বাচিত হয়েছে।
১৭৫টি সদস্য রাষ্ট্রের সমন্বয়ে গঠিত 'আইএমও' জাতিসংঘের শিপিং সংক্রান্ত সর্বোচ্চ বিশেষায়িত সংস্থা। এটি শিপিং সুরক্ষা ও নিরাপত্তা এবং সামুদ্রিক ও বায়ু দূষণ প্রতিরোধে কাজ করে। এছাড়া 'আইএমও' জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রাকেও সহায়তা করে।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, নৌপরিবহন অধিদপ্তর বাংলাদেশের আইএমও'র 'ফোকাল পয়েন্ট' হিসেবে দায়িত্ব পালন করে।
এবারের নির্বাচনে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রথম থেকে সক্রিয় ভূমিকা পালন করে। এই অর্জন বাংলাদেশের দৃঢ় অবস্থান এবং বৈশ্বিক মেরি-টাইম সম্প্রদায়ের মধ্যে ব্যাপক সমর্থনের একটি প্রমাণ। এ বছরের জুনে নিরাপদ জাহাজ পুনর্ব্যবহার সংক্রান্ত হংকং কনভেনশনে বাংলাদেশের অনুসমর্থন যা  আন্তর্জাতিক মেরি-টাইম মানদণ্ড বজায় রাখতে বাংলাদেশের অঙ্গীকার প্রতিফলিত করেছে; তা এই নির্বাচনে একটি বড় ভূমিকা পালন করেছে। এই নির্বাচন মেরি-টাইম সেক্টরকে সুগঠিত ও সুশৃঙ্খল এবং সংগঠিত করবে যার মাধ্যমে বাংলাদেশ জাহাজ নির্মাণ, জাহাজ পরিচালনা এবং জাহাজ পুনর্ব্যবহার সেক্টরের দক্ষতা বৃদ্ধি করে বৈশ্বিক খ্যাতি অর্জন করবে।


আরও পড়ুন: