ঢাকা শুক্রবার
১২ জুলাই ২০২৪
০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

এসপি-ওসিসহ ১৯২ জনের নামে বিএনপির মামলার আবেদন


ডেস্ক রিপোর্ট
211

প্রকাশিত: ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ০১:০৯:০৫ পিএম
এসপি-ওসিসহ ১৯২ জনের নামে বিএনপির মামলার আবেদন ফাইল-ফটো



নারায়ণগঞ্জে পুলিশ ও বিএনপির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষে ‘যুবদল কর্মী’ শাওন নিহতের ঘটনায় মামলার আবেদন করেছে বিএনপি। মামলায় জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) গোলাম মোস্তফা রাসেল ও জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের উপ- পরিদর্শক (এসআই) মাহফুজুর রহমান কনককে প্রধান আসামি করে ৪২ জনের নামোল্লেখ করে, ১৫০ জনকে অজ্ঞাতপরিচয় আসামি করা হয়।

রোববার (৪ সেপ্টেম্বর) সকালে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ইমরান মোল্লার আদালতে এই মামলার আবেদন করেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী।

মামালার আবেদনে অভিযোগ করা হয়, এক নম্বর আসামি জেলা ডিবি পুলিশের এস আই মাহফুজুর রহমান কনকের অস্ত্রের গুলিতে যুবদল কর্মী শাওন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যরা সহযোগিতা করায় তাদেরও আসামি করা হয়েছে।

আদালতে আবেদন করার পর মামলার বাদী রুহুল কবির রিজভীর আইনজীবী অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার সাংবাদিকদের জানান, আদালত আবেদনটি গ্রহণ করেছে এবং তা যাচাই বাছাই করে পরবর্তীতে আইনসম্মত আদেশ প্রদান করবে বলে তাদের নির্দেশ দিয়েছে।

মামলার বাদী সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী সাংবাদিকদের বলেন, সরকার সংবিধান লঙ্ঘন করে বিএনপির গণতান্ত্রিক অধিকার হরণ করেছে। গত ১ সেপ্টেম্বর ঘটনা তাই প্রমাণ করেছে। এর মাধ্যমে দেশে একদলীয় সরকারের নমুনার চূড়ান্ত বহি:প্রকাশ ঘটেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

গুলিতে নিহত যুবদল কর্মী শাওন প্রধান (২০) ফতুল্লার এনায়েতনগর এলাকায় একটি কারখানায় ওয়েল্ডিং মিস্ত্রি হিসেবে কাজ করতেন। তার বাড়ি পার্শ্ববর্তী বক্তাবলী ইউনিয়নের পূর্ব গোপালনগর এলাকায়।

গত বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে একজনের মৃত্যু ছাড়াও পথচারী-নারীসহ গুলিবিদ্ধ হয়েছেন ২৬ জন। পাল্টাপাল্টি ধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও লাঠিপেটায় আহত হয়েছেন পুলিশের সদস্যসহ অর্ধশতাধিক মানুষ। এ সময় ডিআইটি বাণিজ্যিক এলাকা ও ২ নম্বর রেলগেট এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।


আরও পড়ুন: