ঢাকা মঙ্গলবার
২৫ জুন ২০২৪
০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

৭ তারিখ সকলে সকাল সকাল ভোট দিন: শেখ হাসিনা


ডেস্ক রিপোর্ট
307

প্রকাশিত: ৩১ ডিসেম্বর ২০২৩ | ০৫:১২:০১ পিএম
৭ তারিখ সকলে সকাল সকাল ভোট দিন: শেখ হাসিনা ফাইল-ফটো



আগামী ৭ জানুয়ারি সকাল সকাল ভোটকেন্দ্রে হাজির হতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভোটটা নৌকায় দেওয়ার অনুরোধ করে বলেছেন, এই মার্কাই দেশের উন্নতির সোপান। গত শুক্রবার বিকালে বরিশালের বঙ্গবন্ধু উদ্যানে নির্বাচনী জনসভায় অংশ নিয়ে এ কথা বলেন তিনি। এ সময় বঙ্গবন্ধু কন্যার সঙ্গে ছিলেন তার ছোট বোন শেখ রেহানাও। দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে এটি আওয়ামী লীগ সভাপতির সশরীরে তৃতীয় জনসভা। ২০ ডিসেম্বর সিলেটে প্রথম, ২৬ ডিসেম্বর রংপুরে দুটি পথ-সভা ও একটি জনসভায় অংশ নেন। এছাড়া বেশ কিছু জেলায় জনসভায় ভার্চুয়ালি বক্তব্য রাখেন তিনি।

বরিশালের জনসভায় প্রধানমন্ত্রী এই বিভাগের ২১টি আসনে নৌকা মার্কার প্রার্থীদের পরিচয় করিয়ে দেন। এরপর তার সরকারের আমলে এই অঞ্চলে উন্নয়নের বর্ণনা দিয়ে বলেন, এই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে চাইলে নৌকা মার্কায় ভোট দিতে হবে। সেই সঙ্গে ভোট বর্জনকারী বিএনপি–জামায়াত ও সমমনাদের আন্দোলনের তীব্র সমালোচনা করেন।

তরুণদের নৌকা মার্কায় ভোট দেয়ার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, আমরা বিশ্বাস করি তারুণ্যের শক্তিই বাংলাদেশের অগ্রগতি। নতুন ভোটার যারা নতুন ভোটারদের কাছে আমা র আহ্বান, যারা নতুন করে ভোট দিতে আসবেন তারা নিশ্চয়ই চাইবেন না আপনার ভোট ব্যর্থ হোক। কাজেই আপনারা নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে নৌকাকে জয়যুক্ত করবেন।

‘মার্কাটা কী?’ এই প্রশ্ন রেখে নিজেই জবাব দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, “নৌকা মার্কা। এই নৌকা হচ্ছে নুহ (আ.) এর নৌকা। এই নৌকা মহাপ্লাবন থেকে মানুষকে রক্ষা করেছিল, এই নৌকায় ভোট দিয়ে বাংলাদেশের মানুষ স্বাধীনতা পেয়েছে, এই নৌকায় ভোট দিয়ে দারিদ্র্য বিমোচন হয়েছে, ডিজিটাল বাংলাদেশ হয়েছে। নৌকায় ভোট দিলে স্মার্ট বাংলাদেশ হবে।”

গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখার ওপরও গুরুত্ব দেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, এই ধারা অব্যাহত আছে বলে বাংলাদেশের উন্নয়ন হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ করে দিয়েছি এবং ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে স্মার্ট বাংলাদেশ। আমাদের ছেলে, মেয়েরা সুশিক্ষায় সুশিক্ষিত হবে, আধুনিক বিজ্ঞান প্রযুক্তি শিখবে, দক্ষ জনশক্তি হবে। আমাদের সরকার ডিজিটাল পদ্ধতিতে স্মার্ট হবে, আমাদের অর্থনীতি স্মার্ট হবে, সমাজ ব্যবস্থা স্মার্ট হবে।’

ছাত্রছাত্রীদের মনোযোগ দিয়ে পড়াশোনা করার তাগিদ দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, শিক্ষিত জাতি ছাড়া কোনো দেশ কখনো উন্নতি করতে পারে না। আমরা দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে চাই, যাতে বিশ্বের সঙ্গে শিক্ষা–দীক্ষায় সব দিক থেকে আমাদের তরুণ প্রজন্ম চলতে পারে।

উন্নয়নের বর্ণনা ও ভবিষ্যতের অঙ্গীকার: শেখ হাসিনা বলেন, অবহেলিত বরিশাল আজ কোথায় আছে? বরিশাল কি উন্নত হয়েছে? বরিশাল বিভাগে নৌবাহিনীর ঘাঁটি করেছি, সেনানিবাস করেছি, এলাকার উন্নয়নের জন্য বিদ্যুৎকেন্দ্র করা হয়েছে। বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল করে দিচ্ছি, সেখানে সোলার প্যানেল ও কয়লা-ভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করেছি। ভোলার গ্যাস সিএনজি করে ঢাকায় নিচ্ছি। ভবিষ্যতে বরিশালেও নিয়ে আসব যাতে আরো শিল্প কারখানা গড়ে ওঠে। তৃতীয় সাবমেরিন কেবল কুয়াকাটায় চলে যাবে জানিয়ে তিনি বলেন, দক্ষিণাঞ্চলের ইন্টারনেট সেবা নির্বিঘ্ন করতেই এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বরিশাল ছিল শস্য ভাণ্ডার। আবারো সেই পরিচয় ফিরিয়ে আনতে চাই। এজন্য খাদ্য সংরক্ষণাগার করে দিয়েছি। এরই মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় করে দিয়েছি, মেরিন একাডেমী করে দিয়েছি, বরিশাল একটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় করে দেব।


আরও পড়ুন:

বিষয়: