ঢাকা মঙ্গলবার
১৬ জুলাই ২০২৪
০৩ জানুয়ারী ২০২৪

আর্থিক কেলেঙ্কারিতে জেরার মুখে নোরা ফাতেহি


ডেস্ক রিপোর্ট
207

প্রকাশিত: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ০৫:০৯:২৭ পিএম
আর্থিক কেলেঙ্কারিতে জেরার মুখে নোরা ফাতেহি ফাইল-ফটো



সুকেশ চন্দ্রশেখরের সঙ্গে আর্থিক কেলেঙ্কারির মামলায় দিল্লি পুলিশের ইকোনমিক উইং (ইওডব্লিউ)- বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) জিজ্ঞাসাবাদ করেছে অভিনেত্রী নোরা ফাতেহিকে। বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) একই মামলায় টানা দীর্ঘক্ষণ জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে আরেক অভিনেত্রী জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজকে। এই অভিনেত্রীকে ছাড়া আরও জেরা করা হয় পিঙ্কি ইরানিকেও। সুকেশের সঙ্গে এই পিঙ্কিই পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন নোরার।

বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দিল্লিতে পিঙ্কি ইরানিকেও জিজ্ঞাসা করেছে তদন্তকারীরা। জ্যাকুলিনের পর নোরাকেও মুখোমুখি বসিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে। সুকেশের থেকে কোন কোন উপহার পেয়েছেন নোরা, সেই সব তথ্য জানতে চাইবে কর্মকর্তারা।

এর আগে গত সেপ্টেম্বর এই মামলায় দিল্লি পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করে নোরাকে। তার পুরনো বক্তব্যের সঙ্গে আজকের বক্তব্য মিলিয়ে দেখা হবে।

দিল্লি পুলিশের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, নোরাকে আগেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তবে কিছু প্রশ্নের নির্দিষ্ট উত্তর পাওয়া যায়নি এখনো। কারণেই আবারও প্রশ্ন করা হবে তাকে। পিঙ্কির বক্তব্যেও কিছু অসঙ্গতি রয়েছে। কারণে নোরা ফাতেহি তাকে মুখোমুখি বসিয়ে প্রশ্ন করা জরুরি। সেই সুকেশের সঙ্গে নোরার কথা বলে দিয়েছিল। পুলিশের ধারণা, এই পুরো কেলেঙ্কারির ঘটনায় গুরুত্বপূর্ণ কোনো ভূমিকা পালন করছে পিঙ্কি।

প্রিভেনশন অব মানি লন্ডারিং অ্যাক্ট’-এর অধীনে ইডি (এনফোর্সমেন্ট ডিরক্টরেট) কর্মকর্তাদের সামনে আগেই বক্তব্য রেকর্ড করেছেন নোরা। তারপরও তার থেকে বিতর্ক পিছু ছাড়ছে না।

গত মাসেই আর্থিক কেলেঙ্কারিতে জ্যাকুলিনকে অভিযুক্ত হিসেবে পেশ করেছে ইডি। দিল্লি হাইকোর্টে পেশ করা সাপ্লিমেন্টারি চার্জশিটে ইডি জানায় কারাবন্দি সুকেশের থেকে লাভবান হয়েছেন জ্যাকুলিন। সুকেশের তীক্ত অতীতের কথা জানার পরও টাকার লোভে তার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হয়েছেন তিনি, দাবি ইডির। এমনকি ওয়েব সিরিজের লেখকের পারিশ্রমিকও সুকেশের থেকে আদায় করেছিলেন অভিনেত্রী।

বিপরীতে নায়িকা ইডিকে জানিয়েছেন, সুকেশের কাছ থেকে বলিউডের অনেক তারকাই উপহার নিয়েছে। তাহলে কেন তার দিকেই আঙুল উঠছে? এছাড়া পরোক্ষভাবে নোরার দিকেও ইঙ্গিত করেন জ্যাকুলিন। যদিও এখনো নোরাকে অভিযুক্ত হিসেবে মামলায় যোগ করেনি তদন্তকারীরা।

সরকারি কর্মকর্তা পরিচয়ে একাধিক ব্যক্তির কাছ থেকে অর্থ হাতিয়েছেন সুকেশ। ২০২১ সালের সেপ্টেম্বর মাসে এই মামলায় ইডির কাছে গ্রেপ্তার হন সুকেশ তার স্ত্রী। পরে সুকেশের সঙ্গে জ্যাকুলিনের ঘনিষ্ঠতার বিষয় প্রকাশ্যে উঠে আসে। সুকেশ তদন্তকারীদের জানায়, অভিনেত্রীকে .৭১ কোটি রুপির গাড়ির উপহার দিয়েছে। অভিনেত্রীর পরিবারকেও কোটি কোটি রুপি দিয়েছে সে। তার সঙ্গে সম্পর্ক থাকার কথাও জানিয়েছে। তবে নায়িকা সেই কথা অস্বীকার করেছেন। তবে এর মধ্যে তাদের দুজনের মধ্যকার ফাঁস হওয়া ঘনিষ্ঠ ছবি সুকেশের দাবিকেই সত্য হিসেবে শনাক্ত করে।

আর্থিক প্রতারণার এই মামলায় ইতোমধ্যে বিপাকে জ্যাকুলিন। আর এবার বিপদে পড়তে যাচ্ছেন নোরা ফাতেহিও। তবে নিয়ে এখনো কোনো বিবৃতি দেয়নি এই বলি তারকা।


আরও পড়ুন: